» কুঞ্জেরহাটে ২টি স্পীড ব্রেকার স্থাপন করা হউক

Published: 10. Jul. 2019 | Wednesday

শান্ত আহমেদ, স্পেশাল করসপনডেন্ট : শিল্প সম্ভাবনাময়ী দ্বীপজেলা ভোলার অন্যতম বৃহৎ বানিজ্যিক কেন্দ্র কুঞ্জেরহাট বাজারের দুই মাথায় বাজার ব্যবসায়ী ও এলাকার জনসাধারনের নিরাপদে চলাচলের স্বার্থে দুইটি স্পীড ব্রেকার স্থাপন এখন সময়ের দাবী। এ বৃহৎ বানিজ্যিক কেন্দ্রের দুই মাথায় স্পীড ব্রেকার না থাকায় ছোট বড় দুর্ঘটনা এখন নিত্ত নৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে।

সুত্র মতে, কুঞ্জেরহাট বানিজ্যিক কেন্দ্রটি বোরহানউদ্দিন, তজুমদ্দিন ও লালমোহন উপজেলার মধ্যবর্তী স্থানে অবস্থিত। এ বাজার থেকে তিনটি উপজেইলার দূরত্ব প্রায় একই। কাচিয়া ও টবগী ইউনিয়নের জনগনের মিলন কেন্দ্র হল এই কুঞ্জেরহাট বাজার। বর্তমানে কুঞ্জেরহাটে ক্ষুদ্র, মাঝারী ও বৃহৎ আকারের প্রায় দুই সহশ্রাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। আরো রয়েছে কলেজ, মাধ্যমিক বিদ্যালয়, বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়, প্রাথমিক বিদ্যালয়, মাদ্রাসা, কিন্ডার গার্টেন, কয়েকটি স্বায়িত্বশাসিত ব্যাংক, বীমা ও এনজিওর অফিস। এ বাজারটি ভোলা চরফ্যাশন মহাসড়কের উপরে স্থাপিত হওয়ায় বাস ট্রাকসহ বিভিন্ন যানবাহন বাজারের উপর দিয়েই চলাচল করে। বিশেষ করে ভোলা এবং চরফ্যাশন থেকে ছেড়ে আসা বাসগুলোর টাইম কীপারের অফিস কুঞ্জের হাট বাসস্ট্যান্ডে হওয়ায় বাসগুলো দু’ দিক থেকে ছেড়ে পথে পথে সময় ক্ষেপন করে কুঞ্জেরহাট বাজারের কাছাকাছি এলে বেপরোয়া গতিতে চালায়। কিন্তু বাজারের কোথাও কোনো স্পিড ব্রেকার না থাকায় ছোট বড় দুর্ঘটনা অহরহ দুর্ঘটনা ঘটতেই থাকে। গত কয়েক বছর আগে কুঞ্জেরহাট বাজারে এক ভয়াবহ সড়ক দুর্ঘটনায় আবুল বাসার চৌকিদার ঘটনাস্থলে নিহত ও ১০/১২ জন ঘটনাস্থলে মারাত্মকভাবে আহত হওয়ার ঘটনার পর থেকে কুঞ্জেরহাটে দুই মাথায় স্পিড ব্রেকার স্থাপন গন দাবিতে পরিনত হয়। কিন্তু আজো তা বাস্তবে রূপ নেয় নি। ফলে গনদাবী গন শৌচাগারের পানির মতোই ভেসে গেছে।
এমতাবস্থায় কুঞ্জেরহাট বাজার ব্যবসায়ী, এলাকার জনগন, স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার ছাত্রছাত্রীদের নিরাপদে যাতায়াত সুবিধা সুনিশ্চিত করার জন্য কুঞ্জেরহাটের দুই মাথায় স্পিড ব্রেকার স্থাপন করা খুবই জরুরী। অত্র এলাকার মাননীয় সংসদ সদস্য জনাব আলী আজম মুকুল সাহেব কুঞ্জেরহাট বাজারের দুই মাথায় স্পিড ব্রেকার স্থাপনের বিষয়টি গুরুত্বের সাথে হস্তক্ষেপ করলে তা হয়তোবা বাস্তবে রূপ নিতে পারে বলে কুঞ্জেরহাটবাসী মনে করেন।