সমর্থকদের চমকে দিতে হাসপাতাল ছাড়লেন ট্রাম্প

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
করোনায় আক্রান্ত হয়ে ওয়াশিংটনের একটি সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তার সমর্থকদের চমকে দিলেন। তার অসুস্থতার কথা শুনে যেসব কর্মী-সমর্থক হাসপাতালের সামনে জড়ো হয়েছিলেন তিনি কিছুক্ষণের জন্য হাসপাতাল ছেড়ে গাড়িবহর নিয়ে তাদের দেখা দিয়েছেন।

বিবিসির এক অনলাইন প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়ে বলা হচ্ছে, চমকে দিতে সফর করবেন টুইটারে এমন ঘোষণা দেয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই গাড়ির ভেতর মাস্ক পরে হাসপাতালের বাইরে তার গাড়িবহরকে চক্কর দিতে দেখা যায়।

হাসপাতাল থেকে বের হয়ে গাড়ি নিয়ে বের হওয়ার বিষয়টিকে চিকিৎসকরা নিরাপদ হিসেবে জানানোর পর ট্রাম্প হাসপাতাল ছাড়েন বলেন নিশ্চিত করেছেন হোয়াইট হাউসের এক কর্মকর্তা।

মহামারি নিয়ন্ত্রণ নিয়ে সমালোচনার মুখে পড়া এবং করোনা ‘তেমন কোনো ভাইরাস নয়’ বলে এক সময় দাবি করা ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, তিনি ভাইরাসটি সম্পর্কে অনেক কিছু জানতে পেরেছেন। এখন সবাইকে তিনি সেটা জানাতে চান।

এর আগে তার চিকিৎসক জানিয়েছেন, ক্রমশই ট্রাম্পের শারীরিক অবস্থার উন্নতি হচ্ছে এবং সোমবারের মধ্যেই তিনি হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাবেন বলে তাদের দীর্ঘ বিশ্বাস।

হোয়াইট হাউসের চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. শন কনলি বলেন, আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হওয়ার পর দুইবার প্রেসিডেন্টের দেহে অক্সিজেনের মাত্রা কমে গিয়েছিল এবং তাতে স্টেরয়েড ওষুধ ডেক্সামেথাসন দেয়া হচ্ছে।

কোভিড-১৯ পজিটিভ হওয়ার পর অন্তত একবার প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে কৃত্রিমভাবে অক্সিজেন দেয়ার প্রয়োজন হয়েছে বলেও জানিয়েছেন ডা. শন কনলি। অবশ্য এর আগে জানানো হয়েছিল ট্রাম্পকে অক্সিজেন দেয়া হয়নি।

কোট-টাই ছাড়া একটি জ্যাকেট পড়ে দেয়া এক টুইট বার্তায় তিনি জানান, ‘আমি কোভিড সম্পর্কে অনেক কিছু শিখেছি। আমি সত্যিই এটা শিখেছি স্কুলে গিয়ে। এটাই আসল স্কুল। এটি বই পড়ার স্কুল নয়। আমার এটা হয়েছে এবং আমি বুঝতে পেরেছি। এটি একটি খুব মজার বিষয়, আমি আপনাদেরকে এটা সম্পর্কে জানাবো।’

তবে ট্রাম্প যতই যা বলুক গত শুক্রবার তিনি তার স্ত্রী এবং ওইদিন থেকে এরপর হোয়াইট হাউসে তার অনেক মিত্রের দেহে ভাইরাসটির সংক্রমণ শনাক্ত হওয়ার পর আসন্ন মার্কিন নির্বাচন নিয়ে অনিশ্চয়থা এবং যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতিকে অচলাবস্থা তৈরি হয়েছে। আগামী ৩ নভেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *