দুই ভ্যাটিকান যাজকের বিচার শুরু

ঘটনাটি ঘটেছে ভ্যাটিকানে সেইন্ট পায়াস টেন নামের ধর্মীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে৷ ইটালিভিত্তিক পাদ্রিদের একটি সংগঠনের মাধ্যমে পরিচালিত হয় সেটি৷ সেইন্ট পিটার্স ব্যাসিলিকায় পোপ ও পাদ্রিদের সহযোগিতার জন্য সেখানে ১২ থেকে ১৮ বছরের শিশুরা প্রশিক্ষণ নেয়৷ পরবর্তীতে তাদের অনেকের পাদ্রি হিসেবেও অভিষেক ঘটে৷

অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে ২৮ বছর বয়সী ধর্মযাজক গ্যাব্রিয়েল মার্টিনেলি সেখানে শিক্ষাগ্রহণকালে তার চেয়ে কম বয়সি একজনের ওপর যৌন নির্যাতন চালিয়েছেন৷পরবর্তীতে মার্টিনেলি নিজেও যাজক হিসেবে অভিষিক্ত হন৷ এই ঘটনা জানার পরও সেটি লুকিয়েছিলেন সেইন্ট পায়াস টেন-এর প্রধান ৭২ বছর বয়সি ফাদার এনরিকো রেডিস৷ এমনকি তিনি ইটালিয়ান চার্চের কর্মকর্তাদের কাছে চিঠি লিখে ভিন্ন ব্যাখ্যা দিয়ে সত্য আড়াল করার চেষ্টাও করেন।

তদন্ত প্রতিবেদন অনুযায়ী, মার্টিনেলি ১৩ বছর বয়সি একটি শিশুর উপর এক বছর ধরে এই নির্যাতন চালিয়েছেন৷ সেসময় তার বয়স ছিল ১৮ বছর৷

ভুক্তভোগী শিশুর সঙ্গে একই কক্ষে থাকা কামিল জারজেমবোস্কি এই ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী৷ তিনি পোপ ফ্রান্সিস এবং চার্চ কর্তৃপক্ষকে বারবার চিঠি লিখেও তার কোনো জবাব পাননি বলে জানান৷ পরবর্তীতে ২০১৭ সালে ইটালির গণমাধ্যমে তিনি এই তথ্য ফাঁস করেন৷ সে বছরই ভ্যাটিকান ঘটনার তদন্ত শুরু করে৷ ২০১৯ সালে দায়ের করা হয় অভিযোগপত্র ৷

এই বিষয়ে অভিযুক্তরা এখন পর্যন্ত জনসমক্ষে কোনো মন্তব্য করেননি৷ বুধবারও আদালতে তাদের আইনজীবীরাই বক্তব্য রেখেছেন৷ আদালত ২৭ অক্টোবর পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেছে।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *